অর্থনৈতিক ও সামাজিক খাতের সব সূচকে পাকিস্তানের উপরে অবস্থান বাংলাদেশের

কয়েক দশক ধরে সামাজিক ও অর্থনৈতিক সব খাতের সব সূচকে পাকিস্তানের উপরে অবস্থান করছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের স্বাধীনতাসংগ্রামের অন্যতম ভিত্তি ছিল পূর্ব ও পশ্চিম পাকিস্তানের মধ্যকার আর্থসামাজিক বৈষম্য। জনসংখ্যা বেশি হলেও তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান তুলনামূলক কম বরাদ্দ পেত। পশ্চিম পাকিস্তানের উন্নয়নে বেশি বরাদ্দ দেওয়া হতো। এই অর্থনৈতিক ও সামাজিক বঞ্চনার কারণেই বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধের প্রেক্ষাপট তৈরি হয়। ১৯৭১ সালে রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়। দুই বছর আগে মাথাপিছু আয়ে পাকিস্তানকে ছাড়িয়ে গেছে বাংলাদেশ। ২০১৭-১৮ অর্থবছরে পাকিস্তানের মাথাপিছু আয় ছিল ১ হাজার ৬৫২ ডলার। ওই বছর বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় বেড়ে দাঁড়ায় ১ হাজার ৭৫১ ডলার। পরের বছর তা আরও বেড়ে হয় ১ হাজার ৯০৯ ডলার। অন্যদিকে পাকিস্তানের মাথাপিছু আয় কমে ১ হাজার ৪৯৭ ডলারে নেমে যায়। এভাবে সামাজিক খাতে ও বিভিন্ন অংশে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। যেখানে বাংলাদেশীদের গড় আয়ু ৭২ দশমিক ৩ বছর সেখানে পাকিস্তানিদের গড় আয়ু ৬৬ দশমিক ৬ বছর। গর্ভধারণ ও সন্তান জন্মদানের কারণে বাংলাদেশে প্রতি এক লাখে ১৬৯ জন মা মারা যান। পাকিস্তানে মারা যান ১৭৮ জন মা।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *