আস্তে আস্তে দূষণ কমছে গঙ্গা নদীর!!

ভারতে লকডাউনের প্রভাব পড়েছে গঙ্গার পানিতেও। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঘোষণার পর ২৪ মার্চ থেকে দেশজুড়ে ২১ দিনের লকডাউন শুরু হয়। বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া মানুষ ঘরবন্দি। বন্ধ কলকারখানা। আর তারই প্রভাব পড়ল গঙ্গার ওপরও। জানা যাচ্ছে, ২৪ মার্চের পর থেকেই দূষণ কমতে শুরু করেছে গঙ্গায়। ৪০ থেকে ৫০ শতাংশ উন্নতির খোঁজ মিলেছে। আইআইটি বিএইচইউর কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজির অধ্যাপক ড. পি কে মিশ্র সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে জানান, ‘গঙ্গার দূষণের এক-দশমাংশ আসে শিল্প থেকে। যেহেতু শিল্পোৎপাদন এখন বন্ধ লকডাউনে, তাই পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। আমরা গঙ্গায় ৪০-৫০ শতাংশ উন্নতি লক্ষ করেছি। এটা তাৎপর্যপূর্ণ উন্নতি।’ তিনি আরো বলেন, ‘১৫-১৬ মার্চ বৃষ্টি হওয়ায় এখানে গঙ্গার জলস্তর বেড়েছে। এর অর্থ এর পরিষ্কার করার ক্ষমতা বেড়ে গেছে। যদি আমরা ২৪ মার্চ থেকে শুরু লকডাউন এবং তার আগের পরিস্থিতির দিকে নজর রাখি, তাহলে দেখব অভাবনীয় উন্নতি হয়েছে।’

বারানসির স্থানীয় মানুষরা এতে খুব খুশি। এক স্থানীয় জানাচ্ছেন, ‘কদিন আগে আমরা গঙ্গার যে জল ব্যবহার করেছি আর এখন যে পরিস্থিতি, তা দেখলে পার্থক্যটা বোঝা যায়। আজ জল কত পরিষ্কার! এর অন্যতম কারণ, এখন কারখানা বন্ধ। মানুষজনও ঘাটে স্নান করতে আসছে না। যদি ১০ দিনেই এমন হয়ে থাকে, তাহলে আমার বিশ্বাস অচিরেই গঙ্গা একেবারে আগে যেমন ছিল তেমন হয়ে উঠবে।’

আরেকজন জানাচ্ছেন, ‘লকডাউনের সময় গঙ্গার জল পরিষ্কার হয়ে গেছে। কেউ-ই নিশ্চয়ই ভাবতে পারেননি লকডাউনে পরিবেশের ওপর এমন প্রভাব পড়বে। গঙ্গার পরিষ্কার জলের দিকে তাকালে আমাদের খুব আনন্দ হচ্ছে।’

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ২৪ মার্চ দেশব্যাপী ২১ দিনের সম্পূর্ণ লকডাউনের কথা ঘোষণা করেন।

বারানসির মতো কানপুরেও স্থানীয়দের মধ্যে খুশি লক্ষ করা গেছে গঙ্গার জলের এমন অভাবনীয় পরিবর্তনে। স্থানীয় একজনের বক্তব্য, ‘গঙ্গার জল আগের তুলনায় অনেকটা পরিষ্কার হয়ে গেছে। দেখে ভালো লাগছে।’ সূত্র : এনডিটিভি।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *