শোয়েবের সেরা ওয়ানডে একাদশে নেই কোহলি

ক্রিকেট ছাড়ার পরও নিয়মিতই আলোচনায় আছেন শোয়েব আখতার। ক্রিকেটের বিভিন্ন বিষয়ে মতামত দিতে শোনা যায় তাঁকে।

এ ব্যাপারে তাঁকে সবচেয়ে বড় সাহায্য করছে তাঁর নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেল। সাবেক ক্রিকেটাররা যেখানে কোচ না হয় প্রশাসনিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে নিজেকে যুক্ত করেছেন, শোয়েব আখতার সেখানে ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ হিসেবে নিয়মিত মতামত দিয়ে থাকেন তাঁর চ্যানেলে। এবার শোয়েব আলোচনায় এসেছেন ওয়ানডের সেরা একাদশ নির্বাচন করে। একাদশে ভারতের চারজনকে রাখলেও সেখানে জায়গা হয়নি বিরাট কোহলির

বিরাট কোহলি
বিরাট কোহলি

বিশ্বের যে কাউকে ওয়ানডের সেরা একাদশ বানাতে বললে সেখানে বিরাট কোহলির থাকাটা নিশ্চিতই বলা চলে। কিন্তু ওই দলে অন্তত শোয়েব আখতার পড়েন না!


তবে কোহলিকে না নিলেও শোয়েব একাদশ নির্বাচনের ক্ষেত্রে বেশ ভালোই ‘কূটনীতি’র আশ্রয় নিয়েছেন। চারজন করে ভারত ও পাকিস্তানি খেলোয়াড়কে নিয়েছেন দলে। ভারত থেকে জায়গা পেয়েছেন শচীন টেন্ডুলকার, বিশ্বকাপজয়ী সাবেক দুই অধিনায়ক কপিল দেব ও মহেন্দ্র সিং ধোনি এবং যুবরাজ সিং। ওদিকে নিজের দেশ থেকে শোয়েব নির্বাচন করেছেন ওয়াসিম আকরাম, ওয়াকার ইউনিস, ইনজামাম–উল–হক ও সাঈদ আনোয়ারকে।

একসঙ্গে ওয়ার্ন ও টেন্ডুলকার।
একসঙ্গে ওয়ার্ন ও টেন্ডুলকার।

তবে এই একাদশ নির্বাচন করার মাধ্যম হিসেবে নিজের ইউটিউব চ্যানেল নয়, বরং ক্রীড়াবিষয়ক চ্যানেল স্পোর্টসকিডাকে বেছে নিয়েছেন সাবেক এই গতি তারকা। একাদশের বাকি তিন ক্রিকেটারের মধ্যে একজন ওয়েস্ট ইন্ডিজের, বাকি দুজন অস্ট্রেলিয়ার। ওয়েস্ট ইন্ডিজ থেকে জায়গা পেয়েছেন কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান ও বাংলাদেশের সাবেক কোচ গর্ডন গ্রিনিজ। অস্ট্রেলিয়া থেকে শোয়েবের পছন্দ হয়েছে স্পিনার শেন ওয়ার্ন ও উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান অ্যাডাম গিলক্রিস্টকে।

একাদশের নয়জনের সঙ্গে খেলার সৌভাগ্য হয়েছে শোয়েবের। শুধু গ্রিনিজ ও কপিল দেবের বিপক্ষে মাঠে নামার সুযোগ হয়নি বিশ্বের দ্রুততম এই ফাস্ট বোলারের।

 ওয়াকার ইউনিস ও ওয়াসিম আকরাম- পাকিস্তানের বিখ্যাত পেস জুটি
ওয়াকার ইউনিস ও ওয়াসিম আকরাম- পাকিস্তানের বিখ্যাত পেস জুটি

একাদশে বেশ কয়েকটি প্রশ্নবিদ্ধ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন শোয়েব। কোহলিকে তো দলে রাখেনইনি, ওপেনার সাঈদ আনোয়ারকে রেখেছেন মিডল অর্ডারে। ওয়ানডেতে ওপেনার হিসেবে সাফল্য পাওয়া অ্যাডাম গিলক্রিস্টকে রেখেছেন ছয় নম্বরে। যে পজিশনে টেস্ট খেলতেন সাবেক এই উইকেটরক্ষক। একাদশে ওয়ার্ন ছাড়া কোনো বিশেষজ্ঞ স্পিনার নেই। একাদশে ধোনি, ওয়াসিম কিংবা কপিল থাকা সত্ত্বেও অধিনায়ক হিসেবে নির্বাচন করেছেন শেন ওয়ার্নকে।

নিজের এই সিদ্ধান্তগুলো খোলাসা করেছেন শোয়েব, ‘মানুষ চমকে যেতে পারে সাঈদ ভাইকে মিডল অর্ডারে দেখে, কিন্তু এখনকার যুগে সাঈদ ভাই মিডল অর্ডারে নামলে বোলারদের স্রেফ খুন করে ফেলতেন।’

২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনালে ছক্কা মেরে ভারতের জয় নিশ্চিত করেন ধোনি। তাঁর সেই শট।
২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনালে ছক্কা মেরে ভারতের জয় নিশ্চিত করেন ধোনি। তাঁর সেই শট।

ওপেনার হিসেবে শোয়েবের দলে আছেন গ্রিনিজ ও টেন্ডুলকার, ওয়ানডাউনে ইনজামাম। চার নম্বরে সাঈদ আনোয়ার। এরপরই দুই উইকেটরক্ষক ধোনি ও গিলক্রিস্টকে খেলাচ্ছেন শোয়েব। সাত নম্বরে খেলবেন যুবরাজ সিং। পেস আক্রমণে দুই পাকিস্তানি ওয়াসিম ও ওয়াকারের সঙ্গে থাকবেন ১৯৮৩ বিশ্বকাপজয়ী কপিল দেব, যিনি শোয়েবের মতে ইতিহাসের সেরা পেস বোলার। সবার শেষে ওয়ার্ন।

শোয়েব আখতারের সেরা ওয়ানডে একাদশ : গর্ডন গ্রিনিজ, শচীন টেন্ডুলকার, ইনজামাম উল হক, সাঈদ আনোয়ার, মহেন্দ্র সিং ধোনি, অ্যাডাম গিলক্রিস্ট, যুবরাজ সিং, ওয়াসিম আকরাম, ওয়াকার ইউনিস, কপিল দেব, শেন ওয়ার্ন

source- prothom alo

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!