মুম্বাইয়ে ভারী বৃষ্টিতে দুটি ভবন ধসে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২০

প্রবল বৃষ্টিতে ভারতের মুম্বাইয়ের চিম্বুর ও বিক্রোলি এলাকায় আবাসিক দুটি ভবন ধসে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২০ জনে পৌঁছেছে। গতকাল শনিবার রাতে শুরু হওয়া বৃষ্টি আজ রোববারও থামেনি। ভবনের ধ্বংসস্তূপের নিচে আটকে পড়া লোকজনকে উদ্ধার করার কাজ চলছে। মুম্বাইয়ে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। লোকজনকে বাইরে ঘোরাঘুরি করতে নিষেধ করা হয়েছে। খবর এনডিটিভির।

মুম্বাইয়ের পৌর কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, আজ সকালে শহরের বিক্রোলি এলাকায় একটি আবাসিক ভবন ভেঙে পড়ে। বিক্রোলির সূর্যনগর এলাকা থেকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে নয়জনকে।
ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে শহরের চিম্বুর এলাকাতেও। সেখানে ভরত নগর এলাকায় ভেঙে পড়া বাড়ির নিচে থেকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে ১৫ জনকে।

উদ্ধারকারী কর্মকর্তারা জানান, আহত ব্যক্তিদের স্থানীয় হাসপাতালগুলোতে পাঠানো হচ্ছে। এসব এলাকায় অনেকেই এখনো আটকা পড়ে আছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তাদের উদ্ধারে চেষ্টা চলছে।

গতকাল রাত আটটা থেকে দিবাগত রাত দুইটা পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, মুম্বাইয়ে ১৫৬ দশমিক ৯৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। এর মধ্যে শহরের পূর্বাঞ্চলে ১৪৩ দশমিক ১৪ মিলিমিটার এবং পশ্চিমাঞ্চলে ১২৫ দশমিক ৩৭ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। মুম্বাইয়ের চুনাভাট্টি, সিওন, দাদার, গান্ধী মার্কেট, চিম্বুর, কুরলা, এলবিএস রোডের এলাকাগুলোতে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে।

আগামী পাঁচ দিনও মুম্বাইয়ে ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে জানিয়েছে ভারতের আবহাওয়া বিভাগ। এর আগে ২০১৯ সালে টানা ২৪ ঘণ্টা শহরটিতে বৃষ্টিপাত হয়। সে বছরের ২ জুলাই ৩৭৫ দশমিক ২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। ২০১০ সালের পর থেকে এটিই ছিল মুম্বাইয়ে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতের রেকর্ড।

source- prothom alo

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *