সাত বছর আগের ‘মজার স্মৃতি’তে নস্টালজিক নাজমুল

আম্পায়ারের জায়গায় দাঁড়িয়ে ছিলেন স্পিন বোলিং কোচ রঙ্গনা হেরাথ।হেডমাস্টারের চোখ দিয়ে নেটে নাজমুল হোসেনের স্পিন বোলিং দেখছিলেন লঙ্কান কিংবদন্তি।

বল বাঁক না পেলেও হেরাথের মুখে ফুটল স্বস্তির হাসি। হাসির জবাবটা হাসি দিয়েই দিলেন বাংলাদেশ দলের এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে ওয়ানডে সিরিজ জয়ের পর বাংলাদেশ দলের সামনে টেস্ট সিরিজ। নাজমুলের মুখের হাসিই বলে দিচ্ছিল, টেস্টে মাঠে নামার আগে ফুরফুরে মেজাজেই আছে বাংলাদেশ দল।

ওয়ানডে দলে থাকলেও মাঠে নামার সুযোগ পাননি নাজমুল। বৃহস্পতিবার ডারবানের কিংসমিডে শুরু হতে যাওয়া প্রথম টেস্টে তাঁর খেলার সম্ভাবনাই বেশি। এ ম্যাচ নাজমুলকে নস্টালজিক করে তুলতে পারে।

আরও পড়ুনঃ নিষ্পাপ শিশুর মৃত্যু ঠেকানোই এখন তাঁর কাজ

সাত বছর আগে দক্ষিণ আফ্রিকা অনূর্ধ্ব–১৯ দলের বিপক্ষে সাত ম্যাচের যুব ওয়ানডে সিরিজ খেলেছিল বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব–১৯ দল। নাজমুল সে দলের হয়ে এসেছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকায়। সিরিজটা ৫–২ ব্যবধানে জিতেছিল বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব–১৯ দল।

ডারবানে অনুশীলনে বাংলাদেশ দল
ডারবানে অনুশীলনে বাংলাদেশ দল

সে সিরিজে দক্ষিণ আফ্রিকা অনূর্ধ্ব–১৯ দলে খেলেছিলেন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান কাইল ভেরেইনা, রায়ান রিকেলটন ও অলরাউন্ডার উইয়ান মোল্ডার। এই টেস্ট সিরিজে দক্ষিণ আফ্রিকা দলে আছেন তিন ক্রিকেটারই।

সেই সিরিজ নিয়ে আজ মজার এক স্মৃতি ভাগ করলেন নাজমুল। বিসিবির পাঠানো ভিডিও বার্তায় নাজমুল বলেন, ‘(দক্ষিণ আফ্রিকায় এসে) অনেক ভালো লাগছে। ছয়–সাত বছর আগে এসেছিলাম। স্মৃতিটা খুব ভালো। ওদের দলে বেশ কয়েকজন রাগবি খেলোয়াড় ছিল। ব্যাটিংয়ে নামলে আমরা বুঝতাম না আসলে ক্রিকেট খেলতে নেমেছে না রাগবি খেলতে—এমন অনেক মজার কিছু মুহূর্ত ছিল। আমরা শিখতেও পেরেছি এবং উপভোগও করেছি।’

টেস্ট সিরিজ সামনে রেখে প্রস্তুতি নিচ্ছে বাংলাদেশ দল
টেস্ট সিরিজ সামনে রেখে প্রস্তুতি নিচ্ছে বাংলাদেশ দল

মোল্ডারদের সঙ্গে আবারও দেখা হবে, নাজমুল হয়তো জিজ্ঞেস করবেন, বন্ধু, কেমন আছ! বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান সে প্রতীক্ষায়ই আছেন, ‘সে সময় মোল্ডার ছিল, সিপামলা ছিল, ওদের সঙ্গে আবার একটা ম্যাচ খেলার সুযোগ পাব, অনেক দিন পর দেখাও হবে, আশা করছি আমাদের ম্যাচগুলোও ভালো যাবে এবং ভালো সময়ই কাটাব।’

তথ্য সূত্রঃ প্রথম আলো

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published.