স্পিনাৎসোলার জন্য মরিনিওর হাহাকার

আগামীকাল ওয়েম্বলিতে ইউরোর সেমিফাইনালে স্পেনের মুখোমুখি হবে ইতালি। কিন্তু এ ম্যাচের আগে ইতালির জন্য বড় দুঃসংবাদই হয়ে এসেছে লিওনার্দো স্পিনাৎসোলার চোট। কোয়ার্টার ফাইনালে বেলজিয়ামের বিপক্ষে ম্যাচের একেবারে শেষের দিকে স্পিনাৎসোলা ছিটকে গেছেন ইউরো থেকেই।

স্পিনাৎসোলার জন্য মরিনিওর হাহাকার

স্পিনাৎসোলার চোটে তো ইতালি কোচ মানচিনির জন্য বিরাট হতাশা। কিন্তু মানচিনির মতোই হতাশ আরেক কোচ জোসে মরিনিও। সদ্যই রোমাতে যোগ দেওয়া পর্তুগিজ কোচের যে বড় অস্ত্রই হবেন স্পিনাৎসোলা। ইতালির এ লেফটব্যাক যে সিরি ‘আ’তে খেলেন রোমার জার্সিতে। স্বাভাবিকভাবেই দলের গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলারের চোটে কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ রোমা কোচ মরিনিওর।

চোটটা গুরুতরই। অন্তত ছয় মাস আগে স্পিনাৎসোলার মাঠে ফেরার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। মরিনিওর কণ্ঠে তাই হতাশার সুর, ‘এটা ইতালির জন্য বিরাট ক্ষতি। কিন্তু আমার জন্যও এটা অনেক বড় ক্ষতি। কারণ, আগামী ছয় মাসের আগে ওকে পাচ্ছি না।’

স্পিনাৎসোলার জন্য মরিনিওর হাহাকার

স্পেনের বিপক্ষে স্পিনাৎসোলাকে না পাওয়া ইতালির জন্য বড় ক্ষতি। এটিকে অবশ্য শক্তিতে রূপান্তর করতে চান সতীর্থরা। লরেন্স ইনসিনিয়ে তো শুধু স্পিনাৎসোলার জন্যই ফাইনালে দেখতে চান ইতালিকে। মরিনিওর সুরেই কথা বলে অনুপ্রেরণা খুঁজছেন ইনসিনিয়ে, ‘আমাদের জন্য একটা বড় ক্ষতি হয়ে গেল। ওর জন্যই আমরা অনেক দূর যেতে চাই। সে আমাদের দলের খুব গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। আমরা ওর জন্যই ফাইনালে উঠতে সর্বোচ্চ নিংড়ে দেওয়ার চেষ্টা করব।’

রোমায় যোগ দিয়েছেন মরিনিও।
রোমায় যোগ দিয়েছেন মরিনিও।

ইতালির ফুটবলাররা আপাতত ইউরো নিয়েই ভাবছেন। কিন্তু মরিনিওর ভাবনায় সিরি ‘আ’, চ্যাম্পিয়নস লিগ, কোপা ইতালিয়া। এরই মধ্যে রোমে পৌঁছে রোমা–সমর্থকদের কাছ থেকে উষ্ণ সংবর্ধনা পেয়েছেন মরিনিও। এমন সংবর্ধনা পেয়েও মন খারাপ মরিনিওর। প্রতিপক্ষকে হারানোর কৌশল সাজাতে স্পিনাৎসোলাকে একটা বড় ভূমিকা পালন করতে হতো। এখন তাঁকে ছাড়াই কৌশল সাজাতে হবে মরিনিওর, ‘এমারসন পালমেইরি (চেলসির) ভালো ফুটবলার। ও অভিজ্ঞ। কিন্তু স্পিনাৎসোলা যেভাবে খেলে, সেটা অবিশ্বাস্য।’

রোমায় পা রেখে বিপুল সংবর্ধনা পেয়েছেন মরিনিও।
রোমায় পা রেখে বিপুল সংবর্ধনা পেয়েছেন মরিনিও।

৫৮ বছর বয়সী এই পর্তুগিজ কোচ গতকাল নিজের ইনস্টাগ্রামে একটা ভিডিও পোস্ট করেছেন। যেখানে দেখা গেছে, রোমার ফুটবলারদের অনুশীলন সেন্টার ট্রিগোরিয়ায় কোয়ারেন্টিন করছেন তিনি। রিয়াল মাদ্রিদ, ইন্টার মিলান ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাবেক এই কোচ বলেছেন, ‘আর দুদিন ফুটবলারদের থেকে দূরে থাকতে হবে আমাকে।’ যদিও কোয়ারেন্টিনে থাকতে খুব বেশি আপত্তি নেই মরিনিওর। ইতালির পরিবেশ বেশ উপভোগই করছেন, ‘এখানে আমি ভালোই আছি। আবহাওয়া অসাধারণ। আমি বাইরে যেতে পারি, অনুশীলন দেখতে পারি, অনুশীলন করানোর জন্য সহকারীর সঙ্গে আলোচনা করতে পারি। আমার পরামর্শেই তারা সবকিছু দেখভাল করছে।’

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *