হতাশা ও আত্মহত্যা, তারপর?

মানুষ মরণশীল, কথাটা চিরন্তন সত্য।জন্ম নিলেই মৃত্যুর স্বাধ নিতেই হবে, যার শুরু আছে তার শেষ থাকবেই। বেঁচে থাকাটাই অস্বাভাবিক। তাই কেউ মারা গেলে তাকে নিয়ে মাতামাতির কিছু নেই।

দুঃখ, বেদনা, হতাশা জীবনের একটা অবিচ্ছেদ্য অংশ। তাই বলে আত্মহত্যা, ছি! সৃষ্টিকর্তা এসব দুঃখ বেদনা রেখেছেন আমাদের পরীক্ষা করতে।

আত্মহত্যা কোন কিছুর সমাধান হতে পারেনা, বরং এটা মহাপাপ। আর পাপের জন্য শাস্তি থাকবেই, কেউ RIP কিংবা ‘শান্তিতে থাকুন বললেই তার আত্মা শান্তি পাবে না। বরং সে থাকবে চির অশান্তিতে, চাইলেও আর সে মরতে পারবেনা।

এমনিতেও আত্মহনন কাপুরুষদের কাজ। আল্লাহ সকলকে সুবুদ্ধি দান করুক। সকল সমস্যার একটা সমাধান আছে, তাই বিপদে হতাশ না হয়ে ধৈর্যশীল হন- ভাল সময় আসবে, এটা সৃষ্টিকর্তার ওয়াদা।

নিজের কথাগুলো না চেপে রেখে, বিশ্বস্ত কাউকে বলুন – মনটা হালকা হবে।

শেষকথাঃ সকলের সহানুভূতি কিংবা অতিমানবিক গুণাবলি স্বদেশীয় লোকদের জন্য কিছুটা আশা করছি।

 

Sharing is caring!

One thought on “হতাশা ও আত্মহত্যা, তারপর?

  • June 14, 2020 at 6:27 PM
    Permalink

    সুন্দর লিখেছেন ভাই😍

    Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *